HomeComputer PC Tipsনেটওয়ার্কিং কি? কম্পিউটার নেটওয়ার্ক কীভাবে কাজ করে?

নেটওয়ার্কিং কি? কম্পিউটার নেটওয়ার্ক কীভাবে কাজ করে?

About Blogger (Total 3257 Blogs Written) 24 Views

mm
contributor

আমার Youtube Channel (Movie Bangla) আশা করি সবাই ভিজিট করুন।

No thumbnail

ম্পিউটার নেটওয়ার্ক (Computer Network) এরসুনাম না করলেই নয়, যদি আবিষ্কার না হতোআপনি এই লেখাটি পড়তে পারতেন না(ইন্টারনেট ব্যবহার করে) আর আমিও লিখতেপারতাম না (আমি কম্পিউটারে লিখি এবংসেটা আমার রাউটারের সাথে কানেক্টেডরয়েছে আর রাউটার ইন্টারনেটের সাথেকানেক্টেড রয়েছে)। এটাতে কোন সন্দেহনেই, যখনআপনি খুঁটিনাটি খতিয়ে দেখবেন সেক্ষেত্রেকম্পিউটার নেটওয়ার্ক অত্যন্ত জটিল ব্যাপার কিন্তু যেধারণা ব্যবহার করে কম্পিউটার গুলোকে একে অপরেরসাথে কানেক্ট করে নেটওয়ার্কিং (Networking) করা হয়সেটি অনেক সহজ ব্যাপার। তো চলুন বিস্তারিত সবকিছুজেনে নেওয়া যাক…কম্পিউটার নেটওয়ার্ক কি?একদম সহজ ভাষায় বলতে, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক বানেটওয়ার্কিং এর অস্তিত্ব সেখানেই রয়েছে, যেখানেএকাধিক কম্পিউটার একে অপরের সাথে কানেক্টেডহয়ে ডাটা এবং হার্ডওয়্যার রিসোর্স শেয়ার করে।আপনার সিঙ্গেল কম্পিউটার মেশিনটি এমনিতেই অনেকপাওয়ারফুল ডিভাইজ কিন্তু এর সাথে আরো কম্পিউটারবা যন্ত্রানুষঙ্গ (যেমন- মোডেম, প্রিন্টার, স্ক্যানার,রাউটার ইত্যাদি) যুক্ত করার মাধ্যমেআপনার মেশিনটিথেকে আরো বেশি কিছু করানো সম্ভব। কম্পিউটারনেটওয়ার্কে কম্পিউটার গুলো তার, ফাইবার অপটিকক্যাবল, অথবা ওয়্যারলেস প্রযুক্তির মাধ্যমেকানেক্টেড থাকে যাতে বিভিন্ন আলাদা ডিভাইজ(নোড) গুলো একে অপরের সাথে কথা বলতে পারে।মানুষের চাহিদা অনুসারে আমরা কম্পিউটার নেটওয়ার্ককে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কাজে লাগিয়ে থাকি।নেটওয়ার্কিং এর প্রকারভেদআগেই বলেছি, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক বা নেটওয়ার্কিংকিন্তু সহজ ব্যাপার নয় আবার নেটওয়ার্ক এক প্রকারেরওনয়; যেমন ধরুন আমি বর্তমানে ল্যাপটপ ব্যবহার করছি আরআমার ল্যাপটপ হোম রাউটারের সাথে কানেক্টেডরয়েছে। তাছাড়াও আমার ল্যাপটপের সাথে প্রিন্টার,এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ সহ আরো ছোটখাটো ডিভাইজলাগানো রয়েছে, আর আমার বর্তমান অবস্থাকে আপনিপ্যান (PAN) বা পার্সোনাল এরিয়া নেটওয়ার্ক(Personal Area Network) এর সাথে তুলনা করতে পারেন —আবার এটাকে সিঙ্গেল পার্সন নেটওয়ার্কও বলতেপারেন। কিন্তু আমি যদি কোন অফিসের উদাহরণ দেয়,যেখানে কিছু কম্পিউটার একসাথে কানেক্টেড থাকে,একসাথে একাধিক প্রিন্টার স্ক্যানারকানেক্টেডথাকে এবং ইন্টারনেট কানেকশন সকলের সাথে শেয়ারকরা থাকে; তাহলে এটিকে ল্যান (LAN) বালোকালএরিয়া নেটওয়ার্ক (Local Area Network) বলা হবে। কিন্তুল্যান কিন্তু আরো বিশাল আকারের হতে পারে, শুধু কোনঅফিস বা স্কুলের কম্পিউটার বা হার্ডওয়্যার গুলো নয়,হতে পারে কোন এলাকার কম্পিউটার বা কোন দেশেরবা পৃথিবীর সকল কম্পিউটার গুলোকে একত্রেকানেক্টেড করা যেতে পারে। আর এতো বিশালনেটওয়ার্কিং ব্যবস্থাকে ওয়্যান (WAN) বা ওয়াইডএরিয়া নেটওয়ার্ক (Wide Area Network) বলা হয়।ইন্টারনেটই হলো ওয়্যান, যেটা সমস্থ পৃথিবীরকম্পিউটার গুলোকে কানেক্টেড রেখেছে।প্রোটোকলকম্পিউটার সবসময় যুক্তিকে অনুসরণ করে, আর যেখানেইযুক্তি রয়েছে সেখানেই রয়েছে নির্দিষ্ট নিয়ম কানুন।কম্পিউটার নেটওয়ার্কে একটি আর্মির সাথে তুলনাকরতে পারেন। যেমন আর্মিতে থাকা সকল সদস্য ঐ দলেরনিয়ম অনুসরণ করে ঠিক তেমনি নেটওয়ার্কে থাকা সকলকম্পিউটার ঐ নেটওয়ার্কের কানুন অনুসরণ করেই কাজকরে। উদাহরণ স্বরূপ ল্যান এর কথা বলাযাক, ল্যানেপ্রত্যেকটি কানেক্টেড থাকা নোড (কম্পিউটার বাঅন্যান্য যন্ত্র যেমন- প্রিন্টার, স্ক্যানার) গুলো একটিসাধারন প্যাটার্নে যুক্ত থাকা আবশ্যক, যাকেনেটওয়ার্ক টপোলজি বলা হয়। আপনি চাইলে লাইনকরে লম্বা আঁকারে কম্পিউটার গুলোকে কানেক্টেডকরতে পারেন, এখানে একটি কম্পিউটার থেকে লাইনআরেকটি কম্পিউটারে, আরেকটি থেকে আরেকটিতেইত্যাদি করে কাজ করবে। আবার স্টার সেপে মেশিনগুলোকে কানেক্টেড করানো যেতে পারে কিংবা রিংআঁকারে একটি কানেকশন লুপ তৈরি করে মেশিনগুলোকে কানেক্টেড করানো যেতে পারে।পাশের চিত্রটির দিকে অনুসরণ করলে আপনি আরোপরিষ্কার ধারণা পাবেন। তাছাড়া নেটওয়ার্কে থাকাকম্পিউটার গুলো একই রুল অনুসরণ করে একে অপরেরসাথে কথা বলে, একে প্রোটোকল বলা হয়। একইলাইনের সাথে সংযুক্ত হয়ে ডিভাইজ গুলো একই সময়েডাটা আদান এবং প্রদান দুইটাই করে ফলেপ্রোটোকলেনা চললে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হবে আর একে অপরের সাথেসম্পর্ক স্থাপন করা সম্ভব হবে না।অনুমতি এবং নিরাপত্তানেটওয়ার্কিং এ অনুমতি এবং নিরাপত্তা একটিঅত্যাবশ্যক জিনিস। কোন কম্পিউটার আপনারনেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত রয়েছে বলেই এটি আপনারযেকোনো আদেশ পালন করবে না। আপনার অপরকম্পিউটার থেকে কোন তথ্য পেতে চাইলে বা কোনরিসোর্স ব্যবহার করতে চাইলে অবশ্যই আপনার কাছেতার অনুমতি থাকতে হবে। যেমন ধরুন ইন্টারনেটের কথা,যেখানে কোটিকোটি ওয়েবসাইট সার্ভারেরয়েছেএবং আপনি যখন ইচ্ছা সেগুলোর পেজকে অ্যাক্সেসকরতে পারবেন। কিন্তু এর মানে এটা নয় আপনি ওয়েবসার্ভার থেকে প্রত্যেকটি সিঙ্গেল ফাইল অ্যাক্সেসকরতে পারবেন। আমি যেমন আপনার পার্সোনাল ফাইলগুলো অ্যাক্সেস করতে পারবো না ঠিক আপনিও আমারগুলো অ্যাক্সেস করতে পারবেন না। তবে আপনি যদিকাওকে অনুমতি দিয়ে থাকেন, সে অ্যাক্সেস করতেপারবে।ইন্টারনেটে কানেক্টেড থেকে বেশিরভাগ পার্সোনালকম্পিউটার গুলো শুধু আউটগোয়িং কানেকশন প্রদান করেযাতে সেটি আরেকটি কম্পিউটারের সাথে লিঙ্ক করতেপারে কিন্তু ইঙ্কামিং কানেকশন সম্পূর্ণ ব্লক করেরাখে। সার্ভার গুলো বিশেষ সফটওয়্যার এবং নির্দিষ্টঅনুমতি সাপেক্ষে ইঙ্কামিং কানেকশন ওপেন রাখে।ইঙ্কামিং কানেকশন অফ রাখলে কেউ সেই কম্পিউটারেঅ্যাক্সেস করতে পারে না, ঐ কম্পিউটারের ডাটা রীডকরা যায় না, এবং রীড করার রিকোয়েস্টকে অগ্রাহ্যকরে দেয়। হ্যাকাররা কোন কম্পিউটারের অ্যাক্সেসপেতে চাইলে অবশ্যই ঐ কম্পিউটারের ইঙ্কামিংকানেকশনের উপর ক্ষমতা পেতে হয়। নেটওয়ার্কেআপনার কম্পিউটারকে সুরক্ষিত রাখতে ফায়ারওয়ালব্যবহার করা যেতে পারে। এতে ইঙ্কামিং ট্র্যাফিকেরউপর এবং আউটগোয়িং ট্র্যাফিকের উ

1 year ago (May 10, 2017) FavoriteLoadingAdd to favorites

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts


Priyo24 Home