বিসিএস প্রিলি গণিত পূর্ণাঙ্গ গাইডলাইন

বিসিএস প্রিলিমিনারী তে
জীবনের এক কঠিন পরীক্ষাক্ষেত্র।
সবচেয়ে প্রতিযোগীতামূলক এই
পরীক্ষাতে ভালো করতে হলে
গণিতের অংশে ভালো করার বিকল্প
কিছু নাই। প্রিলিমিনারী পরীক্ষায়
১০০ টি অবজেকটিভ প্রশ্নে গণিত
অংশে ২০ টি প্রশ্ন থাকে।
বেশিরভাগ শিক্ষার্থী যারা
গণিতে ভালো তাদের টার্গেট
থাকে ১৮-২০ টিই যেন সঠিক হয়।
প্রশ্নে ২০ টি গণিত থাকলেও ১৫ টির
অধিক সাধারণত পারা যায়। আর একটু
শ্রম দিলেই ২০ টিই সঠিক করা যায়।
অনেক সময় এমন ভাবে প্রশ্ন করা হয়
যাতে ২০ টি গণিত অবজেকটিভ
প্রশ্নে ২/১ টির উত্তর নাও পারা
যেতে পারে। এইটা প্রশ্নের টেক্টিস
… হয়তো ঐ ২ টা প্রশ্নের উত্তর খুজতে
কিছু সময় ব্যয় হবে যা করতে গিয়ে
পরীক্ষার্থী ১০০ টি প্রশ্ন পড়ার সময়ই
পায় না আর উত্তর করা আরো পরের
ব্যাপার। তাই আমাদের সাজেশন হবে
অন্তঃত ১৮ টি প্রশ্ন আপনি অনায়াসেই
সঠিক করতে হবে … আর ২০ টি হয়ে
গেলে আলহামদুলিল্লাহ। যারা
গণিতে ভালো তাদের গণিত অংশে
খুব একটা সমস্যা নাই কিন্তু যারা
গণিতে সবল নয় তাদের প্রয়োজন
প্র্যাকটিস। শুধুমাত্র প্র্যাকটিসের
কারণেই আপনি গণিত অংশে ভালো
করতে পারবেন … সামগ্রিক পরীক্ষা
ভালো হবে আর আপনিও করেত
পারবেন ভালো ফলাফল।
গণিত বিষয়ে যে যে বই ফলো
করবেনঃ
১) নিম্ন মাধ্যমিক গণিত [৮ম শ্রেণী]
২) মাধ্যমিক গণিত বীজগণিত [৯ম
শ্রেণী]
৩) মাধ্যমিক গণিত জ্যামিতি [৯ম
শ্রেণী]
৪) প্রাইমারী লেভেলের কোনও
জ্যামিতি বই [৫ম শ্রেণী]
৫) বিসিএর প্রিলিমিনারী
সিরিজের Oracle গণিত বই [বইটা অনেক
ভালো … ডিটেইল এনাইলাইসিস করা
আছে]
গণিত অংশে কি কি পড়তে/দেখতে
হবে তা নিয়ে থাকবে আজকের
আলোচ্য বিষয়ঃ
গণিত অংশকে আমরা মোটামুটি ৩ টি
অংশে ভাগ করতে পারি …
১) পাটিগণিত ২) বীজগণিত ৩)
জ্যামিতি
১) পাটিগণিত অংশে যা যা দেখতে
হবেঃ
অংক, সংখ্যা, মৌলিক সংখ্যা,
মৌলিক দ্বিজোট, মৌলিক ত্রিজোট,
পারফেক্ট নাম্বার, সহমৌলিক
নাম্বার, বর্গের নিয়ম, গুনের নিয়ম,
শতকরা, সুদকষা, লাভ-ক্ষতি, গড়,
চৌবাচ্চা, কাজ, বয়স ও সময় সক্রান্ত
অংক, স্রোত সংক্রান্ত অংক।
[পাটিগণিত অংশের জন্য ৮ম শ্রেণীর
বইটা ভালো ভাবে ফলো করা উচিত
… এই অংশে বর্গ, শতকরা, সুদকষা, লাভ-
ক্ষতি, গড়, চৌবাচ্চা, কাজ, বয়স ও সময়
সক্রান্ত অংক, স্রোত সংক্রান্ত
অংকগুলো পাবেন … ভালোভাবে
অনুশীলন করুন]
২) বীজগণিত অংশে যা যা দেখতে
হবেঃ
বাস্তব সংখ্যা, অবাস্তব সংখ্যা বা
কাল্পনিক সংখ্যা, জটিল সংখ্যা,
অনুবন্ধি সংখ্যা, সেট, মূলদ সংখ্যা,
অমূলদ সংখ্যা, বিভাজ্যতার নিয়ম,
চলরাশি, ধ্রুবরাশি, সমীকরণ, দ্বিঘাত
সমীকরণ, সহদ্বিঘাত সমীকরণ, সহ
সমীকরণ, ফাংশন, উৎপাদক, সমাধান,
ল.সা.গু. এবং গ.সা.গু., মান নির্ণয়,
ধারা (সমান্তর ধারা, গুণোত্তর ধারা)
, অনুপাত-সমানুপাত, লগ, লন, ভগ্নাংশ
বিষয়ক অংক।
[এই সেগমেন্টে বেসিক তৈরী করার
জন্য দেখা উচিত ৯ম শ্রেণীর
বীজগণিত বইটা …
বিশেষ করে …
১ম অধ্যায়ঃ সেট
২য় অধ্যায়ঃ মূলদ, অমূলদ, বাস্তব রাশি,
অবাস্তব রাশি, সংখ্যারেখা
৩য় অধ্যায়ঃ উৎপাদক, মান নির্ণয়,
লসাগু, গসাগু, স্রোত অংক
৪র্থ অধ্যায়ঃ লগ লনের অংক
৫ম অধ্যায়ঃ অনুপাত ও সমানুপাত
৬ষ্ঠ অধ্যায়ঃ সাধারণ সমীকরন
সমাধান, অসমতা সমাধান
৭ম অধ্যায়ঃ ধ্রুব রাশি সমাধান
৮ম অধ্যায়ঃ দ্বিঘাত সমীকরন, দ্বি-
চলরাশি সমীকরণ সমাধান, কথার অংক
সমাধান
৯ম অধ্যায়ঃ সমান্তর ধারা, গুণোত্তর
ধারা ]
৩) জ্যামিতি অংশে যা দেখা
প্রয়োজনঃ
জ্যামিতিক বিভিন্ন বিষয়ক বেসিক
আইডিয়া এবং সংজ্ঞাঃ
কোণ, সূক্ষ্ণ কোণ, স্থূল কোণ, সম্পুরক
কোণ, পূরক কোণ, সমকোণ, সন্নিহিত
কোণ, বিপ্রতীপ কোণ, একান্তর কোণ,
অনুরূপ কোণ, অবনতি কোণ, শীর্ষকোণ,
রেডিয়ান কোণ, সমবাহু ত্রিভুজ,
সমদ্বিবাহু ত্রিভুজ, বিষম বাহু ত্রিভূজ,
সুষম কেন্দ্র, ত্রিভুজের বৈশিষ্ট্য ও
ক্ষেত্রফল, চতুর্ভুজ, রম্বস, সামান্তরিক,
ট্রাপিজিয়াম এবং এইগুলোর সূত্র সমূহ
[এর জন্য যে ৫ম শ্রেণীর বোর্ডের
গণিত বই … ৯ম জ্যামিতি শ্রেণীর প্রথম
দিকের উপপাদ্যগুলো যা বেসিক বা
সংজ্ঞা ]
ঘণজ্যামিতিঃ
বিন্দু, রেখা, তল, ঘনবস্তু, ঘনক, বৃত্ত,
গোলক, সিলিন্ডার, কোণক, প্রিজম,
পিরামিড এবং বৃত্ত সংক্রান্ত
উপপাদ্য ও গাণিতিক সমস্যাবলী,
ত্রিকোণমিতি ও পরিমিতির অংক।
[৯ম শ্রেণীর জ্যামিতি বইটার উপপাদ্য,
সম্পাদ্য, ত্রিকোণমিতি ১২.৩ এবং
পরিমিত অংশ]
আর সার্বিক ভাবে ভালো প্রস্তুতি
নেওয়ার জন্য বিসিএর
প্রিলিমিনারী সিরিজের Oracle
গণিত বইটা ফলো করতে পারেন। খুবই
কাজে দিবে।
*** সংবিধিবদ্ব সতর্কীকরণঃ
গণিত মোটেও মুখস্ত করবেন না … না
বুঝে করবেন না। না বুঝে করলে
আপনার কোনও কাজে আসবে না।
কারণ অংক প্রশ্ন কখনই হুবুহু আসে না …
সূত্র / বেসিকের উপর প্রশ্ন হয়।
প্রতিদিন ১ টা টপিক ভালোভাবে
বুঝে করার চেস্টা করুন … এতে
আপনার / আপনাদের কাজে লাগবে …
ধন্যবাদ।

95 total views, 0 views today

mm
About bipul 5678 Articles
Love is Life

Be the first to comment

Leave a Reply