শুধু আলিয়ার ছবিই দেখি : মহেশ ভাট

মহেশ ভাট। ঠোঁটকাটা স্বভাবের মানুষ। মনে যা
আসে, বলে দেন নির্দ্বিধায়। যেমন বলেছিলেন,
মেয়ে না হলে পূজাকে বিয়ে করতেন। আবার
বলেছিলেন মেয়ে না হলে আলিয়ার সঙ্গে প্রেম
করতেন। এ নিয়ে সমালোচিতও হয়েছেন।
নিজের জীবন নিয়ে সিনেমা করেছেন। টিভি
সিরিয়ালও বানিয়েছেন। তবুও হয়ত মনের মধ্যে
থেকে গেছে কিছু কথা যা বলা হয়নি। সম্প্রতি
আনন্দবাজারের সঙ্গে ফোনালাপে মহেশ ভাট
বলেছেন না বলা আরও অনেক কথা।
তিনি বলেন, ”সত্যি কথা বলাটা সহজ নয়।
সূর্যের দিকে কি খালি চোখে তাকিয়ে থাকা
যায়? তবে বলতে তো হবেই। না হলে,
লোকজন রোলার চালিয়ে দেবে। ”
নিজের লোকেদের বাড়তি সুযোগ পাইয়ে দেওয়া
প্রসঙ্গে বলেন, এ সব শুধু বিতর্কের জন্য
বিতর্ক। তার নিজের প্রোডাকশনেই তো মেয়ে
আলিয়া ভাট কখনও কাজ করেননি।
বলিউডে এখন কারও অভিনয়ই নাকি তার ভাল
লাগে না। তাই বলিউডি ছবি তেমন দেখেনও না।
তার মতে বলিউডের চেয়ে রিজিওনাল ছবি ভাল
হচ্ছে।
তবে হ্যা, মেয়ে আলিয়ার ছবি দেখেন মহেশ।
বলেন, ”ওর ছবি দেখি। এই তো ‘উড়তা
পাঞ্জাব’ দেখলাম। তবে আলিয়া ছাড়া অন্য
কারও ছবি দেখি না। ”
সানি লিওনকে বলিউডে নিয়ে এসেছিলেন মহেশ
ভাট। এ নিয়ে নানা সমালোচনাও শুনতে হয়েছে।
অনেকে বলেছেন, পর্নস্টারকে সিনেমায় এনেছেন
যৌন সুড়সুড়ি দিয়ে বক্সঅফিস জিততে।
কিছুটা ক্ষেপে গিয়ে মহেশ ভাট বলেন, ”এই
হিপোক্রেসিটা আমার সহ্য হয় না। আরে,
লোকজন যখন পর্ন দেখছে, তখন তো কেউ
কোনও প্রশ্ন তুলছে না! এখন তো অনেকের
স্মার্টফোনেও পর্ন থাকে। কেউ অস্বীকার
করতে পারবে, পর্ন দেখে ফোনের ডেটা প্যাকের
অনেকটা যায় না! এমন কাউকে দেখান তো, যে
‘জিসম টু’য়ের আগে সানি লিওনিকে জানত না।
আরে, ও তো কোনও ক্রিমিনাল অফেন্স
করেনি। ওর জনপ্রিয়তাকে আমার সিনেমায়
ব্যবহার করেছি। এতে কার কী অসুবিধা?। ”
ছবি বানানোর ধরণ প্রসঙ্গে মহেশ বলেন,
”আমি কী বানাব আর কী বানাব না সেই
স্বাধীনতা তো আমার থাকবে। আর আমি তো
শুধু সমাজকল্যাণ করার জন্য সিনেমা বানাতে
আসিনি। টাকাও তো রোজগার করতে হবে। ”
নিজের প্রথম বিয়ে (কিরণ ভাট) ভাঙার প্রসঙ্গ
টানতেই কথা টেনে নিয়ে মহেশ ভাট বলেন,
‘‘এক মিনিট, এক মিনিট। আপনি কী বলতে
চাইছেন, বুঝতে পেরেছি। কিন্তু শুনে রাখুন,
আমার প্রথম বিয়ে ভেঙেছে আমার জন্য নয়।
ওটা আপনি ভুল জানেন। উফ, এটা নিয়ে এত
জায়গায় এত কথা হয়েছে, আমি না ভাই এ সব
নিয়ে আর কিছু বলতে চাই না। ”

About bipul 5693 Articles
Love is Life

Be the first to comment

Leave a Reply